পার্বত্য চট্টগ্রাম সবুজ পাহাড়ের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হিংসার ঝরনাধারা

৳ 60.00

এক সময় পার্বত্য চট্টগ্রামের কথা উঠলেই সেখানে বেড়াতে যাওয়ার কথা উঠত, কিন্তু যাওয়া হতো না, পরে তার কথা উঠলেই ভয়ে গা শিউরে উঠতে থাকে, কেউ সেখানে যাওয়ার কথা ভাবতেও পারে না। আমরা শুনেছি বিদ্রোহ করেছেন উপজাতীয়রা; ওই লাল পাহাড় আর চিরহরিৎ বনের ভেতর দিয়ে বয়ে চলেছে পারস্পরিক হিংসা-ঘৃণা-বিদ্বেষের পঙ্ক্ষিল ঝরনাধারা। পার্বত্য চট্টগ্রাম ভরে আছে পাহাড়ে, তার পাশ দিয়ে বয়ে চলেছে ঝরনা, যেগুলোকে বলা হয় ছড়ি বা ছড়া। ওই ছড়িগুলো দিয়ে জলের মতোই বয়ে চলছে ঘৃণা আর হিংসা, যাতে কালো হয়ে আছে সবুজ পাহাড়গুলো, তার রাঙা মাটি। পার্বত্য চট্টগ্রামের সরল সাদা মঙ্গোলীয় মানুষের মনে আর নির্মল ঝরনাধারা নেই। তাঁরা স্বাধীনতা চান, নইলে স্বায়ত্তশাসন চান; তাঁরা দাবি করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হবে, এর থাকবে নিজস্ব আইন পরিষদ; পার্বত্য আদিবাসী জনগণের অধিকার সংরক্ষণের জন্য ১৯০০ সালের শাসন বিধির অনুরূপ সংবিধি থাকতে হবে শাসনতন্ত্রে; থাকবে রাজাদের দপ্তর; পার্বত্য চট্টগ্রামের বিষয় নিয়ে কোনো শাসনতান্ত্রিক সংশোধন বা পরিবর্তন যেন না হয় শাসনতন্ত্রে থাকতে হবে এমন সংবিধি ব্যবস্থা। তাঁদের দাবিগুলো মেনে নেওয়া হয়নি, কেননা মেনে নেওয়া অসম্ভব; তাই তাঁদের বিদ্রোহ হুমায়ুন আজাদ এ-ছোটো বইটিতে নিরপেক্ষভাবে তুলে ধরেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম ও তার সমস্যাকে: বইটি হয়ে উঠেছে একই সঙ্গে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও সাহিত্য-গভীর ও অন্তর্ভেদী, যা পাঠকের চেতনার ভেতরে সঞ্চারিত করে পার্বত্য চট্টগ্রামকে।