• Date of birth:
  • Published Book: 1

রাশেদা খালেক

অধ্যাপক রাশেদা খালেকের জন্ম ১৯৪৫ সালের ২৭ জানুয়ারি সিরাজগঞ্জ জেলার ডিগ্রিরচর গ্রামে। পিতা: আলহাজ রমজান আলী মিয়া, মাতা: মোছা. হালিমা খাতুন। স্বামী: প্রফেসর ড. আবদুল খালেক (সাবেক উপাচার্য, রাবি ও বর্তমান উপাচার্য, এনবিআইইউ)। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন ১৯৭২ সালে। ১৯৮৬ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠিত ‘রা.বি. নার্সারী ও জুনিয়র স্কুল’-এর তিনি প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ। তিনি কাটাখালি আদর্শ ডিগ্রি কলেজ থেকে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে অবসরে যান। তিনি রাজশাহীতে অবস্থিত নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা ও ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান। ১৯৮২ সাল থেকে তিনি বাংলাদেশ বেতার, রাজশাহীর শিশুমেলা আসর, জাতীয় দিবসের বিশেষ অনুষ্ঠান ও সাহিত্য আসর পরিচালনা করে আসছেন। সংগঠনপ্রিয় রাশেদা খালেক বহু সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং সেই সব সংগঠনের সভাপতি ও উপদেষ্টা হিসেবে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। সাহিত্যকর্ম ও শিক্ষাক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য তিনি বেশকিছু সাহিত্য পুরস্কার, পদক, সম্মাননা ও শ্রেষ্ঠ জয়িতার সম্মাননা লাভ করেছেন। তিনি তিন কন্যা ও এক পুত্রসন্তানের জননী।

রাশেদা খালেক

অধ্যাপক রাশেদা খালেকের জন্ম ১৯৪৫ সালের ২৭ জানুয়ারি সিরাজগঞ্জ জেলার ডিগ্রিরচর গ্রামে। পিতা: আলহাজ রমজান আলী মিয়া, মাতা: মোছা. হালিমা খাতুন। স্বামী: প্রফেসর ড. আবদুল খালেক (সাবেক উপাচার্য, রাবি ও বর্তমান উপাচার্য, এনবিআইইউ)। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন ১৯৭২ সালে। ১৯৮৬ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠিত ‘রা.বি. নার্সারী ও জুনিয়র স্কুল’-এর তিনি প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ। তিনি কাটাখালি আদর্শ ডিগ্রি কলেজ থেকে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে অবসরে যান। তিনি রাজশাহীতে অবস্থিত নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা ও ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান।
১৯৮২ সাল থেকে তিনি বাংলাদেশ বেতার, রাজশাহীর শিশুমেলা আসর, জাতীয় দিবসের বিশেষ অনুষ্ঠান ও সাহিত্য আসর পরিচালনা করে আসছেন। সংগঠনপ্রিয় রাশেদা খালেক বহু সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং সেই সব সংগঠনের সভাপতি ও উপদেষ্টা হিসেবে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন।
সাহিত্যকর্ম ও শিক্ষাক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য তিনি বেশকিছু সাহিত্য পুরস্কার, পদক, সম্মাননা ও শ্রেষ্ঠ জয়িতার সম্মাননা লাভ করেছেন।
তিনি তিন কন্যা ও এক পুত্রসন্তানের জননী।

Showing the single Book